সোমবার , ২৮শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ || ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - হেমন্তকাল || ৩রা জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

ঝিনাইগাতীতে ভাঙা সেতুতে ঝুঁকি নিয়ে পারাপার

প্রকাশিত হয়েছে -

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় শালচূড়া চৌরাস্তা-গান্ধীগাঁও সড়কে ডেফলাই এলাকার আব্দুর রহমানের বাড়ির কাছেই একটি সেতুতে ফাটল দেখা দিয়েছে। সেতুটির পূর্ব পাড়ের শেষ অংশে এই ফাটল দেখা দিয়েছে। যাত্রী, চালক ও পথচারীরা ভাঙা সেতুর ওপর দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। স্থানীয় অনেকেই বলছেন, এটি সেতু নয়, যেন ‘মরণফাঁদ’ এ পরিণত হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শালচূড়া চৌরাস্তা-গান্ধীগাঁও সড়কে ডেফলাই এলাকার আব্দুর রহমানের বাড়ির কাছে প্রায় তিন যুগ আগে সাড়ে ১৪ ফুট দৈর্ঘ্য ও ১২ ফুট প্রস্থের একটি সেতু নির্মাণ করা হয়। দীর্ঘ সময় আগে সেতুটি নির্মাণ করায় বর্তমানে সেতুটি জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। সেতুটির পূর্ব পাড়ের শেষ অংশে ফাটল দেখা দিয়েছে। ফলে সেতুটি এখন যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

শনিবার দুপুরে সরেজমিন দেখা যায়, সেতুটির দুই পাশের রেলিং থেকে পলেস্তারা খসে পড়ে লোহার রড বের হয়ে গেছে। শুধু তাই নয় সেতুটির পূর্ব পাড়ের শেষ অংশে ঢালাই খসে গিয়ে লোহার রড বেরিয়ে গেছে। এ অবস্থায় অটোরিকশা, সিএনজি, সাইকেল, মোটরসাইকেল, রিকশা, শ্যালোচালিত মালবাহী ট্রলিসহ বিভিন্ন মানুষ যাতায়াত করছেন। এতে যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় দুর্ঘটনা।

Advertisements

সেতুটির ওপর দিয়ে চলাচলকারী অটোরিকশা চালক মো. আমজাদ হোসেন বলেন, ‘আমি গান্ধীগাঁও এলাকা থেকে প্রতিদিন এই পথে চলাচল করি। কিন্তু সেতুটির যে অবস্থা, তাতে যেকোনো মুহূর্তে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।’

দারুল উলুম ডেফলাই আল আকসা মাদ্রাসার পরিচালক হাফেজ আশরাফুল ইসলাম বলেন, কাংশা ও নলকুড়া ইউনিয়নের কয়েক হাজার মানুষ এ পথে চলাচল করে। এ সেতুটির নির্মাণের সময়কাল বেশি হওয়ায় সেতুর উপরের অংশে এক পাশে ঢালাই খসে গিয়ে রড বের হয়ে গেছে। এর পরেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পথচারীরা চলাচল করছে। যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। দ্রæত সময়ের মধ্যে এ সেতুটি অপসারণ করে এখানে একটি সেতু পুর্ননিমাণের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মো. মোজাম্মেল হক বলেন, ‘ঝুঁকিপূর্ণ ওই সেতু অপসারণ করে জরুরি ভিত্তিতে নতুন সেতু নির্মাণ করা প্রয়োজন। তাই সেতুটি পুর্ননির্মাণের জন্য প্রাক্কলন তৈরী করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠানো হয়েছে।’