আমজাদ আলী মাস্টার (১৯৪৮-২০০৪)

আদর্শ শিক্ষক, দায়িত্বশীল রাজনীতিক ও মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক হিসেবে মরহুম আমজাদ আলী মাস্টার ছিলেন শেরপুরের একজন আলোকিত মানুষ ।
১৯৪৮ সালে শেরপুর সদর উপজেলার কামারিয়া  ইউনিয়নের দিক কামারিয়া গ্রামে তিনি জন্ম গ্রহন করেন । বাবা মরহুম হুসেন আলী ও মা মরহুমা মেহেরুন নেছার তিন সন্তানের মধ্যে তিনি ছিলেন প্রথম সন্তান। স্ত্রী নুরন্নাহার বেগম গৃহিনী । তার চার সন্তানের মধ্যে বড় ছেলে ডা. নাদিম হাসান শেরপুর জেলা হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের কনস্যালটেন্ট ও বিএমএ শেরপুর জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক । ছোট ছেলে নাহিদ হাসান আমজাদ ডায়াগনোষ্টিক সেন্টারের  পরিচালক ও শেরপুর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। দুই মেয়ে আঞ্জুমান নাহার ও আরজুমান নাহার সরকারি বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা পেশায় জড়িত।
শিক্ষা জীবনে তিনি ১৯৬৬ সালে জামালপুর আশেক মাহমুদ কলেজ থেকে বিএ ডিগ্রি অর্জন করেন । পরবর্তিতে ময়মনসিংহ টির্চাস টেনিং কলেজ থেকে বিএড ডিগ্রি অর্জন  শেষে তিনি শিক্ষকতা পেশায় জড়িয়ে পড়েন । ১৯৬৮ সালে  তিনি গাজীর খামার উচ্চ বিদ্যালয়ে সহকারি শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন । পরবর্তিতে তিনি ওই বিদ্যালয়ের  সহকারি প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ।
শিক্ষকতা পেশায় জড়িত হবার আগ থেকেই তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে  জড়িত হন । তার দায়িত্বশীল ভ’মিকায় তিনি একইসঙ্গে নিজ ইউনিয়ন কামারিয়া ও পাশ্ববর্তী গাজীর খামার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন ।
রাজনীতিতে নিলোর্ভ ও সাহসিকতার কারনে তিনি ১৯৬৯ সাল থেকে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত শেরপুর সদর থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালনসহ ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন । পরবর্তিতে তিনি সরসরি (১৯৭৭-১৯৭৯) শেরপুর সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্বভার গ্রহন করেন । মৃত্যুর আগ পর্যন্ত কেবল সভাপতি হিসেবেই দীর্ঘ ২৭ বছর দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে তিনি রাজনৈতিক অঙ্গনে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন ।
তিনি ২০০৪ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ইন্তেকাল করেন ।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের